কলাপাড়ায় রাঘব বোয়ালদের সম্পদের সঠিক তথ্য নেই আয়কর রিটার্ন ফাইলে | আপন নিউজ

বৃহস্পতিবার, ১৮ Jul ২০২৪, ০৭:৫৫ অপরাহ্ন

প্রধান সংবাদ
বাংলাদেশ অটোরিকশা শ্রমিক লীগ কলাপাড়া উপজেলা শাখার কমিটি অনুমোদন; রাহাত সভাপতি কলাপাড়ার লালুয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ০২ নং ওয়ার্ডের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত কলাপাড়ার লালুয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ১ নং ওয়ার্ডের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত আমতলীতে সুবন্ধির বাঁধ লক্ষাধিক মানুষের মরণ ফাঁদ; কাটার দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল কলাপাড়ায় ধুলাসার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত কলাপাড়ায় দালালদের দাপটে অসহায় রোগী; ডায়াগনস্টিক ও ক্লিনিকের মালিকদের সতর্ক কলাপাড়ার টিয়াখালী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ত্রাণ প্রতিমন্ত্রীকে নিয়ে ফেসবুকে পোষ্ট; এবার পর্নোগ্রাফী আইনে মামলা দায়ের আমতলীতে যৌ’তু’ক দিতে অস্বীকার করায় স্ত্রীকে পি’টি’য়ে জ’খ’ম আমতলীতে এক বছরের শিশু পানিতে ডু’বে মৃ-ত্যু
কলাপাড়ায় রাঘব বোয়ালদের সম্পদের সঠিক তথ্য নেই আয়কর রিটার্ন ফাইলে

কলাপাড়ায় রাঘব বোয়ালদের সম্পদের সঠিক তথ্য নেই আয়কর রিটার্ন ফাইলে

বিশেষ প্রতিবেদকঃ পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় রাঘব বোয়ালদের সম্পদের সঠিক তথ্য নেই আয়কর রিটার্ন ফাইলে। অঢেল অর্থ, সম্পত্তি থাকার পরও কর ফাঁকি দিতে সঠিক তথ্য গোপন করে আয়কর রিটার্ন দাখিল করছে কোটিপতি এসব রাঘব বোয়ালরা। এভাবে শহর, মৎস্যবন্দর, শিল্পা ল এলাকা, পায়রা তাপ বিদ্যুৎ, পায়রা সমুদ্র বন্দর ও পর্যটন এলাকায় কর ফাঁকি দেয়া বহুতল ভবন মালিক, ব্যবসায়ী, আবাসিক হোটেল মালিক ও ধনাঢ্য মানুষের নামের তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে প্রতিনিয়ত। কিন্তু অজ্ঞাত কারনে কর ফাঁকি দেয়া এসব ব্যক্তির বিরুদ্ধে আয়কর আইনে পদক্ষেপ গ্রহনের তথ্য জানা যায়নি অদ্যবধি। তবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড’র সংশ্লিষ্ট উপ-পরিচালকের অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা সহকারী কর-কমিশনার বললেন উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুসারে শীঘ্রই পদক্ষেপ নেয়ার কথা।

জানা যায়, কলাপাড়া শহরের ধনাঢ্য এক ব্যক্তির আয়কর রিটার্ন ফাইলে কৃষি খাত থেকে আয় দেখানো হয়েছে ৭৮, ৩৩৬ টাকা, বাড়ী ভাড়া থেকে ১, ৬৮, ০০০, ব্যবসা ৬৫,০০০, স্ত্রীর বেতন থেকে ২, ৭২, ১৬০ টাকা, ব্যাংকে জমা নিজ নামে ১৫, ৫০, ০০০, স্ত্রীর নামে ৫, ৯৪, ২৮৬, স্ত্রীর স্থায়ী আমানত ৪৬, ২২, ১১৬, স্বর্ন নিজ ১২ ভরি, স্ত্রীর ৩০ ভরি, ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী স্ত্রীর ৬০, ০০০, আসবাব পত্র নিজ ৩, ২৫, ০০০, স্ত্রীর ১, ০৫, ০০০, কৃষি জমি ৫.৪৪ একর, অকৃষি ১ একর, ১৪৯ বর্গ মিটার আয়তনের ২ তলা ভবন, যার মূল্য ৬৪, ৯১, ৬৭৪ টাকা। অথচ ওই ব্যক্তির আয়ের খাত সহ বরিশালের বাড়ী, নির্মানাধীন ছয় তলা ভবন এবং জমি জায়গার সঠিক তথ্য নেই আয়কর রিটার্ন ফাইলে। এমনকি অঢেল বিত্ত সম্পদ অর্জনের সঠিক ব্যাখ্যা নেই আয়কর রিটার্ন ফাইলে। কুয়াকাটা শহরের অপর এক এক ব্যক্তির আয়কর রিটার্ন ফাইলে কৃষি খাত থেকে আয় ৮৫, ০০০ টাকা, হোটেল ভাড়া থেকে ১, ৭৬, ৭৫০, ব্যবসা থেকে ১, ৬৫, ০০০, নগদ টাকা ১ লক্ষ, ব্যাংকে জমা ২০ লক্ষ, ১টি মোটর সাইকেল, স্বর্ন ৫ ভরি, টিভি ১, ফ্রিজ ১, মাইক্রোওভেন ১, খাট ৬, সোফাসেট ২, ওয়ারড্রোব ১, ড্রেসিং টেবিল ২, আলমিরা ২, কৃষি জমি ৫. ৩২ একর, স্ত্রীর ২.৫০ একর, ৪ তলা ভবনের ২টি হোটেল, ৩ তলা ভবনের ১টি বাড়ী, বরফ কল ১টি দেখানো হয়েছে আয়কর রিটার্ন ফাইলে। পাশাপাশি ব্যাংক দায় দেনা দেখানো হয়েছে ৫৫ লক্ষ টাকা। কলাপাড়া শহরের ব্যবসা, চাইনিজ হোটেল, কোটি টাকা মূল্যে কেনা প্লট সহ বিপুল বিত্ত সম্পদ অর্জনের সঠিক ব্যাখ্যা নেই ফাইলে। কলাপাড়া শহরের আলোচনার শীর্ষে থাকা তরুন এক কোটিপতির আয়কর রিটার্ন ফাইলে ব্যবসা থেকে আয় দেখানো হয়েছে ৬, ৬৬, ০০০ টাকা, জনপ্রতিনিধি হিসেবে সন্মানী ১, ২০, ০০০, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমাকৃত অর্থ ১৩ লক্ষ, স্বর্নালংকার ২৫ ভরি (উপহার প্রাপ্তি), ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী ৩০, ০০০, আসবাব ১, ২০, ০০০, কৃষি জমি ০.৯০ একর, অকৃষি ৩.৯০ একর। ব্যাংক দায় দেনা দেখানো হয়েছে ১ কোটি, ৩৪ লক্ষ ১৯ হাজার ২৯৪ টাকা। অথচ গত ১২ বছরে তিনি জিরো থেকে কোটি পতি হয়ে গড়ে তুলেছেন বহুতল ভবন, একাধিক ইটভাটা। অঢেল বিত্ত সম্পদ অর্জনের সঠিক ব্যাখ্যা নেই আয়কর রিটার্ন ফাইলে। ইসি’র হলফ নামা থেকে প্রাপ্ত এ সব ধনাঢ্য ব্যক্তির অপ্রদর্শিত অনেক বিত্ত বৈভব থাকলেও তাদের আয়কর রিটার্ন ফাইলে গোপন করা হয়েছে সম্পদের প্রকৃত তথ্য। এভাবেই রাঘব বোয়ালরা প্রতিনিয়ত সম্পদের তথ্য গোপন করলেও কর আইন অদ্যবধি ছুঁতে পারেনি তাদের কাউকে।

সূত্র জানায়, আয়কর বরিশাল অ ল, সার্কেল-২০ এ ৩৭০০ টিআইএন ধারী করদাতা রয়েছেন। ২০২১-২২ অর্থ বছরের ১ জুলাই ২০২১ থেকে ২ জানুয়ারী ২০২২ পর্যন্ত ১১২৪ জন ৮২ বিবি ধারায় আয়কর রিটার্ন দাখিল করেছেন। যা থেকে সরকার রাজস্ব পেয়েছে ৬৪ লক্ষ ৫২ হাজার ১০৮ টাকা। সময়ের আবেদন করেছেন ৪০০ জন। ২১৭৬ জন ব্যক্তি তাদের আয়কর রিটার্ন দাখিল করেন নি। এ ছাড়া মহিপুর-আলীপুর মৎস্য বন্দরের ট্রলার মালিক, কুয়াকাটার আবাসিক হোটেল মালিক এবং পৌর শহর, মৎস্য বন্দর ও পর্যটন এলাকার অধিকাংশ বহুতল ভবন মালিক গন তাদের আয়কর রিটার্ন ফাইল দাখিল করেন নি। এমনকি তাদের ব্যবসা সংক্রান্ত কোন বিনিয়োগ ব্যাখ্যা পর্যন্ত দাখিল করেন নি। এতে রাজস্ব বিভাগ এদের বিরুদ্ধে কর পরিশোধের লক্ষে চিঠি ইস্যু করার প্রস্তুতি নিতে যাচ্ছে বলে জানায় সূত্রটি।

সূত্রটি আরও জানায়, কলাপাড়া পৌর শহরের ২০ ভবন মালিককে ইতোমধ্যে আয়কর রিটার্ন দাখিলের জন্য চিঠি ইস্যু করা হয়েছে। মহিপুর মৎস্যবন্দরের ট্রলার মালিকদের তালিকা এবং কুয়াকাটা পর্যটন এলাকার আবাসিক হোটেল মালিকদের তালিকা সংগ্রহের উদ্দোগ নেয়া হয়েছে। এছাড়া সঠিক তথ্য গোপন করে আয়কর রিটার্ন দাখিল করা অর্ধশত ফাইল যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। যেগুলো আবার পুন:কর নির্ধারনের উদ্দোগ নেয়া হচ্ছে।

অপর একটি সূত্র জানায়, আয়ের সঠিক তথ্য গোপন করায় ইতোমধ্যে আয়কর রিটার্ন জমা দেয়া অর্ধ-শতাধিক ব্যক্তির আয়কর রিটার্ন ফাইল অডিট আপত্তির মুখে পড়েছে। এতে রাজস্ব বোর্ড কার্যালয়ে অডিট আপত্তিতে পড়া ব্যক্তিরা তাদের আয়কর রিটার্ন ফাইল নিস্পত্তির লক্ষে আয়কর অফিসে দৌড়ঝাপ করছেন।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড’র উপ-পরিচালকের অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা বরিশাল কর অ ল, সার্কেল-২০’র সহকারী কর-কমিশনার মো: জাকারিয়া হোসেন বলেন, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুসারে কর ফাঁকি দেয়া ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে শীঘ্রই পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved 2022 © aponnewsbd.com

Design By JPHostBD
error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!!