বাউফলে গৃহবধূর লাশ নিয়ে থানায় অবস্থান করার পরও মামলা নেয়নি পুলিশ | আপন নিউজ

রবিবার, ২২ মে ২০২২, ০১:০১ পূর্বাহ্ন

বাউফলে গৃহবধূর লাশ নিয়ে থানায় অবস্থান করার পরও মামলা নেয়নি পুলিশ

বাউফলে গৃহবধূর লাশ নিয়ে থানায় অবস্থান করার পরও মামলা নেয়নি পুলিশ

বাউফল সংবাদদাতাঃ

পটুয়াখালীর বাউফলে বুধবার রাত ১০ টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত, এক ঘন্টা মায়ের লাশ নিয়ে থানায় অবস্থান করার পরেও মামলা নেয়নি বাউফল থানা পুলিশ। উল্টো প্রতিপক্ষের দেয়া মামলায় তাকেসহ তার বাবাকে আসামী করা হয়েছে। এমন অভিযোগ করেছেন নিহত গৃহবধূ সাফিয়া বেগম (৬০) এর
ছেলে কাছিপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও সাবেক ইউপি সদস্য এন্তাজুল হক শাহিন গাজী।

জানা গেছে, বুধবার ওই গৃহবধূর পোস্টমর্টেম শেষে রাত ১০টার দিকে লাশ নিয়ে বাউফল থানায় আসেন এবং মামলা দেয়ার জন্য তিনি ওসির কক্ষে যান। কিন্তু ওসি মামলা নিতে গড়িমশি শুরু করেন। এ ভাবে প্রায় ১ ঘন্টা অতিবাহিত হয়ে যাওয়ার পর ওসি মামলা নেয়ার কথা বলে লাশ বাড়ি নিয়ে দাফন করতে বলেন এবং বৃহস্পতিবার সকালে থানায় আসার আগে তাকে ফোন দিয়ে আসতে বলেন। তার কথা অনুযায়ি রাত ১১টার দিকে থানা থেকে তার মায়ের লাশ নিয়ে বাড়ি চলে যান।
বৃহস্পতিবার সকালে তিনি ওসির মোবাইলে কল দিলে ওসি তাকে আসতে নিষেধ করেন ।
এরপর ওসি ফোন লাইন কেটে দেন। পরবর্তীতে তাকে একাধিক বার ফোন দিলেও তিনি আর ফোন রিসিভ করেননি। পরে খবর নিয়ে জানতে পারেন প্রতিপক্ষ এনায়েত হোসেন খোকন উল্টো তাকে ও তার বাবা চুন্নু গাজী (৬৫) কে সহ বাড়ির ১১জনকে আসামী করে বৃহস্পতিবার থানায় একটি মামলা করেছেন।

বাউফল থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন,‘ এ ঘটনায় পটুয়াখালী থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে। পোস্ট মর্টেম রিপোর্ট হাতে পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

উল্লেখ্য,ওই এলাকার প্রাক্তন মেম্বর শাহিন গাজীর সাথে বর্তমান মেম্বর খোকন হাওলদারের নির্বাচন সংক্রান্ত বিষয়ে পূর্ব থেকেই বিরোধ চলছিল। করোনা ভাইরাস এর কারনে খোকন মেম্বার ত্রাণ বিতরণের তালিকা করতে শাহিনদের বাড়ির এলাকায় গেলে সেখানে শাহিনদের বাড়ির লোকজনদের সাথে কথার কাটা কাটি ও ঝগড়া হয়। এসময় শাহিনের বাড়ির লোকজন খোকন মেম্বারকে ধাওয়া দিলে সে সেখান থেকে চলে যায়। পরবর্তীতে খোকন তার বাড়ির লোকজন নিয়ে শাহিনদের বাড়ির কাছে গেলে শাহিন মেম্বারদের পরিবারের পুরুষ, মহিলা সবাই সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এসময় উভয় পক্ষের কমপক্ষে ৭/৮ জন আহত হয়। হামলা চলাকালে খোকন মেম্বরের পক্ষের লোকজনের লাঠির আঘাতে মাথায় গুরুতর জখম প্রাপ্ত সাফিয়া বেগমকে প্রথমে বাউফল উপজেলা হাসপাতালে নেয়া হয়, সেখান থেকে তাকে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাফিয়া বেগম মারা যায়।

আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 aponnewsbd
Design By MrHostBD
error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!!