আমতলীতে বাহরাইন প্রবাসীর স্ত্রীকে গুমসহ একাধিক মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ | আপন নিউজ

সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৩৫ অপরাহ্ন

প্রধান সংবাদ
কলাপাড়ায় সেচপাম্প দিয়ে দোকানে পানি দেওয়ার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে একজনের মৃ-ত্যু আমতলীতে মঙ্গল শোভাযাত্রার মাধ্যমে বর্ষবরণ কলাপাড়ায় বেপরোয়া গতিতে খাদে পড়ল সিএনজি অটোরিকশা, নি-হ-ত ২, আ-হ-ত-৪ আমতলীতে আ’গু’নে পু’ড়ে কয়লা শিশু; দ/গ্ধ মা-বাবা হাসপাতালে আমতলীতে হিরণ গাজী হ*ত্যা মামলার প্রধান আসামীসহ গ্রে’প্তা’র-৫ কলাপাড়ায় পূর্ব শত্রুতার জেরে ইউপি সদস্য সহ তিনজনকে কু’পি’য়ে জ/খ/ম আমতলীতে ভোটারদের টাকা দিতে বাঁধা দেওয়ার ছুরি’কা’ঘাতে চেয়ারম্যান সমর্থককে হ/ত্যা কলাপাড়ায় গৃহবধুর শ্লীলতাহানীর অভিযোগ আমতলীতে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া হতদরিদ্রদের চাল বিক্রি; ইউপি চেয়ারম্যানকে শোকজ আমতলী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিক বরাদ্দ; প্রতিক পেয়েই প্রচারে প্রার্থীরা
আমতলীতে বাহরাইন প্রবাসীর স্ত্রীকে গুমসহ একাধিক মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

আমতলীতে বাহরাইন প্রবাসীর স্ত্রীকে গুমসহ একাধিক মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

আমতলী প্রতিনিধিঃ

আমতলী উপজেলার দক্ষিণ রাওঘা গ্রামের বাহরাইন প্রবাসী লালন ফকিরের স্ত্রী খাদিজা বেগমকে গুমসহ একাধিক মামলা দিয়ে হয়রানি করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই গ্রামের কালাম হাওলাদার ও তার স্ত্রী হেমেলা বেগম এবং ছেলে রুবেল এ হয়রানি করছেন এমন অভিযোগ ভুক্তভোগী খাজিদা বেগমের। অসহায় খাদিজা বেগম মামলা এবং কালামের হামলার ভয়ে নাবালক ৩ সন্তানকে নিয়ে পালিয়ে বেরাচ্ছেন।
জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিণ রাওঘা গ্রামের সোনা মিয়া ফকিরের ছেলে লালন ফকির ২০১৬ সালে স্ত্রী খাদিজা এবং ৩ সন্তানকে বাড়িতে রেখে বাহারাইনে পাড়ি জমায়। ২০১৭ সালের মার্চ মাসে খাদিজা বেগমের নিকট থেকে প্রতিবেশী কালাম হাওলাদার ২০ হাজার টাকা ধার নেন। ওই টাকা চাইতে গিয়ে কালাম হাওলাদারের সাথে বিপত্তি বাঁধে তার। এ নিয়ে স্থানীয় ইউপি অফিসে সালিশ বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে কালাম হাওলাদারের নিকট থেকে টাকা আদায় করে দেন শালিসরা। এতে ক্ষিপ্ত হয় কালাম হাওলাদার ও তার স্বজনরা। এ ঘটনার জের ধরে খাদিজাকে একাধিকবার মারধর করেন কালাম হাওলাদার তার ছেলে রুবেল এবং স্ত্রী হেমেলা বেগম। মারধর করেই খ্যান্ত হয়নি কালাম। খাদিজার বিরুদ্ধে একাধিক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছে তিনি। ২০১৯ সালে খাদিজা এবং তার প্রবাসী স্বামী লালন ফকিরের নামে আমতলী উপজেলা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে কামলাকে প্রবাসে নেয়ার কথা বলে টাকা নিয়েছেন এমন অভিযোগে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলা মিথ্যা প্রমানিত হওয়ায় আদালত খারিজ করে দেন। গত ১৩ আগস্ট খাদিজাকে হয়রানী করার জন্য আবারো মিথ্যা গুম মামলা দায়ের করেন কালামের স্ত্রী হেমেলা। মিথ্যা মামলা ও কালাম হাওলাদার ও তার লোকজনের ভয়ে খাদিজা তার ৩ নাবালক সন্তান নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।
স্থানীয় বাসিন্দা মোঃ দুলাল মৃধা বলেন, কালাম তার স্ত্রী হেমেলা এবং ছেলে রুবেল হাওলাদার খারাপ প্রকৃতির লোক। প্রবাসী লালন ফকির বিদেশে থাকায় তার স্ত্রী খাদিজাকে একাধিকবার মারধরসহ বিভিন্ন ধরনের মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করছে।
খাদিজা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, কালাম হাওলাদার আত্মগোপন করে গুমের নাটক সাজিয়ে আমিসহ ৭ জনকে আসামী করে গুম মামলা দিয়ে আমাকে হয়রানি করছে। আমি এখন নাবালক ৩ সন্তান নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি। তিনি আরো বলেন, কালামের স্ত্রী হেমেলা বেগম এবং তার আত্মীয় স্বজনরা আমাকে এবং আমার ৩ নাবালক সন্তানকে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। আমি এর বিচার চাই। আমি আমার সন্তানদের নিয়ে বাঁচতে চাই।
কালাম হাওলাদারের স্ত্রী হেমেলা বেগম তাদের বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার স্বামীকে খাদিজা ও তার লোকজন গুম করেছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আমতলী থানার এসআই শুভ বাড়ৈ বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি। কালাম আত্মগোপনে যাওয়ার পর ফোনে কথা বলার প্রমাণ পেয়েছি।
আমতলী থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ হেলাল উদ্দিন বলেন, দক্ষিণ রাওঘা গ্রামের কালাম হাওলাদার নামে একজন গুম হওয়ার একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্তধীন রয়েছে। পুলিশ সচেতনতার সাথে তদন্ত কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন।

আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved 2022 © aponnewsbd.com

Design By JPHostBD
error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!!