আমতলীতে বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় দ্বিগুন লাভবান হওয়ার আশা | আপন নিউজ

বৃহস্পতিবার, ১৩ Jun ২০২৪, ০৪:৪৮ অপরাহ্ন

প্রধান সংবাদ
কলাপাড়ায় ফ্রি স্বাস্থ্য ক্যাম্পের বিশেষ প্রচারণা তালতলীতে নাম সর্বস্ব এতিমখানার নামে টাকা উত্তোলন; ভাগবাটোয়ারায় আত্মসাৎ গলাচিপা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের শপথ গ্রহণ কলাপাড়ায় সাবেক বন কর্মকর্তার মরদেহ উদ্ধার কলাপাড়ায় বড়ইতলা নদীর উপর ব্রিজ নির্মাণের দাবি কলাপাড়ায় রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত ১৫০ পরিবার পেলো গুড নেইবারস’র ত্রাণ সামগ্রী কলাপাড়ায় ক্ষতিগ্রস্থ্য ৩৬০০ পরিবার পেলো জাপানের খাদ্য সহায়তা আমতলীকে ভুমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষনা অসুস্থতায় এইচএসসি পরীক্ষার ফরমে বিলম্ব হওয়ায় হতাশ শিক্ষার্থী পরিবেশ রক্ষায় বিশেষ অবদান রাখা ব্যক্তি- সংগঠক-সংগঠনকে সবুজ সাথী সম্মাননা প্রদান
আমতলীতে বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় দ্বিগুন লাভবান হওয়ার আশা

আমতলীতে বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় দ্বিগুন লাভবান হওয়ার আশা

আপন নিউজ প্রতিবেদন, আমতলীঃ আমতলীতে এ বছর বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় খরচ উঠে দ্বিগুন লাভবান হবে কৃষকরা। কৃষকরা বলেন, বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় বেশ লাভবান হওয়ার আশা করছেন তারা। উপজেলা কৃষি অফিসার সিএম রেজাউল করিম বলেন, বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। বাজারে ধানের দামও ভালো। এতে কৃষকরা অধিক লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানাগেছে, এ বছর আমতলীতে বোরো ধান চাষের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছিল ২ হাজার ৬’শ হেক্টর। কিন্তু ওই লক্ষমাত্রা অর্জিত হয়ে ২ হাজার ৭’শ ৫০ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে । বোরো ধান চাষের উপযুক্ত সময় মধ্য কার্তিক থেকে শুরু করে ফাল্গুন মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত। বীজতলা থেকে শুরু করে পাঁচ মাসের মধ্যে উচ্চ ফলনশীল বোরো ধানের ফলন আসে। এ বছর অনাবৃষ্টির কারনে সেচ দিয়ে কৃষককের খরচ বেশী হয়েছে। উচ্চ ফলনশীল জাতের বিরি-২৮, বিরি-২৯,বিরি-৪৭ ও বিরি-৬৭, বিরি-৭৪, বিরি-৮৮ ও হাইব্রীড এসএল-৮ এবং ইস্পাহানী-২ ধান চাষ করছেন কৃষকরা। বর্তমানে কৃষকরা ধান কাটায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। বাজারে ধানের দাম অনেক ভালো। শুরুতেই বাজারে প্রতিমণ ধান ৯৫০ থেকে ১০০০ টাকা বিক্রি হয়েছে। বর্তমান বাজারে চিকন ধান ৭৮০ থেকে ৯০০ টাকা এবং মোটা ধান ৭২০ টাকা থেকে ৮২০ মণ দরে বিক্রি হচ্ছে। কৃষকরা জানান, এক হেক্টর জমিতে উৎপাদন খরচ ৬০ হাজার টাকা। ওই জমিতে ধান উৎপাদন হয়েছে গড়ে ৬ মেট্রিক টন। বাজারে প্রতিমণ ধান ৭২০-৮২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সেই হিসেবে ওই জমিতে অন্তত ১ লক্ষ টাকা আয় হবে। বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় এ বছর ভালো লাভবান হবে বলে আশা করছেন কৃষকরা।

বৃহস্পতিবার সরেজমিনে ঘুরে দেখাগেছে, উপজেলার কুকুয়া, হলদিয়া, চাওড়া, আমতলী সদর ও আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে বোরো ধান কাটায় ব্যস্ত সময় পাড় করছে কৃষকরা।

কাউনিয়া গ্রামে কৃষক নজরুল ইসলাম বলেন, ১৫ হাজার টাকা ব্যয়ে ৮০ শতাংশ জমিতে রোবো চাষ করেনি। ফলন ভালো হয়েছে। বাজারে ধানের দামও ভালো। আশা করি খরচ উঠে দ্বিগুন লাভ হবো।

ঘোপখালী গ্রামের আফজাল শরীফ বলেন, এ বছর বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে এবং বাজারে ধানের দামও ভালো। আশা করি বেশ ভালোই লাভবান হবো।

উত্তর তক্তাবুনিয়া গ্রামের আরিফ মৃধা বলেন, ৫২ হাজার টাকা খরচ করে তিন একর জমিতে বোরো ধান চাষ করেছি। ফলন ভালো হয়েছে। আশা করি এক লক্ষ টাকার বেশী বিক্রি করতে পারবো।

উপজেলা আড়ৎদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন বলেন, বাজারে মোটা ও চিকন দুই ধরনের ধান রয়েছে। চিকন ৭৮০ থেকে ৯০০ টাকা এবং মোটা ধান ৭২০ থেকে ৮২০ টাকা মণ ধরে বিক্রি হচ্ছে। ধানের দাম ভালো থাকায় কৃষকরা অনেক লাভবান হবে।

উপজেলা কৃষি অফিসার সিএম রেজাউল করিম বলেন, বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় কৃষকরা বেশ লাভবান হবে।

আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved 2022 © aponnewsbd.com

Design By JPHostBD
error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!!