বৃহস্পতিবার, ২৯ Jul ২০২১, ১০:২৫ অপরাহ্ন

প্রধান সংবাদ
গলাচিপায় হত্যা মামলার প্রধান দুই আসামী গ্রেফতার গলাচিপায় লকডাউনের ৭ম দিনে ব্যাপক তৎপর উপজেলা প্রশাসন তিন ঘন্টার ব্যবধানে আমতলী হাসপাতালে করোনা ইউনিটে দুইজনের মৃত্যু অভ্যন্তরীন কোন্দলের জের ধরে কলাপাড়ায় ছাত্রলীগ নেতার হাতের কব্জি কর্তন গলাচিপায় কঠোর লকডাউনে তৎপর প্রশাসন ও সেনাবাহিনী গলাচিপায় টানা বর্ষণে তলিয়ে গেছে নিম্নাঞ্চল নলছিটিতে সাংবাদিকের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কলাপাড়ায় মিলাদ ও দোয়া করোনায় সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা ঝালকাঠী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের মৃত্যু সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিনে কলাপাড়ায় মিলাদ ও দোয়া
বেনাপোলে ৬ ঘন্টায়ও উদ্ধার হয়নি সাঁতার কাঁটতে যেয়ে হারিয়ে যাওয়া এক কিশোর

বেনাপোলে ৬ ঘন্টায়ও উদ্ধার হয়নি সাঁতার কাঁটতে যেয়ে হারিয়ে যাওয়া এক কিশোর

মোঃ জসীম উদ্দীন,বেনাপোলঃ

নদীতে সাঁতার কাটতে যেয়ে হারিয়ে যাওযা ইকরামুল (১৫) নামে এক কিশোর ৬ ঘন্টা অতিবাহিত হলেও তাকে উদ্ধার করা যায়নি। বেনাপোল ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা উদ্ধার তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। ঘটনাটি ঘটেছে বেনাপোল পোর্ট থানার ধান্যখোলা-ঘিবা জোড়া ব্রিজের নীচে কোদলা নদীতে।

শনিবার (২২শে আগষ্ট) দুপুর ১ টার সময় কোদলা নদীতে তিন বন্ধু সাঁতার কাটতে যেয়ে ইকরামুল হারিয়ে যায়। ইকরামুল ধ্যান্যখোলা দক্ষিনপাড়া গ্রামের ইমামুলের ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, ইকরামুল, রনি ও হাবিবুল্লাহ কোদলা নদীর ব্রীজ থেকে লাফিয়ে সাঁতার কেটে দক্ষিন দিকে যায়। সেখান থেকে ফেরার সময় রনি ও হাবিবুল্লাহ ব্রীজের উপর উঠলেও ইকরামুল উঠতে পারেনি। এ প্রসঙ্গে রনি বলে, আমরা একসাথে সাঁতার কেটে আসছিলাম ব্রীজের কাছে এসে ইকরামুল হারিয়ে যায় । তাকে আমরা দেখতে না পেয়ে খুজাখুজি করে গ্রামের লোকজনদের খবর দেই। এরপর গ্রামের লোকজন এসে চেষ্টা করে তাকে উদ্ধার করতে পারেনি।

আজিজুল নামে ঘিবা গ্রামের এক যুবক বলে, আমরা হারিয়ে যাওয়া কিশোরকে উদ্ধার করতে না পেরে বেনাপোল ফায়ার সার্ভিস ইউনিটকে খবর দেই।

বেনাপোল ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট প্রধান তৌহিদুর রহমান সুমন বলেন, আমরা ৮ জন বেনাপোল ইউনিট থেকে উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। সামান্য স্রোত ও আছে নদীতে। ধারনা করা যাচ্ছে হয়ত ওই কিশোর কোদলা নদীর ব্রীজের নীচে আটকিয়ে আছে। দক্ষিন পাশ থেকে ডুব দিয়ে উত্তর পাশে ব্রীজের নীচে দিয়ে উঠার মত কোন অবস্থা নেই। কারন সেখানে এত পরিমান কচুরী পানা এবং অন্যান্য পানি বাহিত গাছ জমে আছে তার ভিতর দিয়ে বের হওয়া সম্ভব না। তিনি বলেন, খুলনা থেকে ফায়ার সার্ভিসের আমাদের ডুবুরী দল আসছে। তাছাড়া এখানে একটি নৌকা ও না থাকায় আমাদের কাজ করতে খুব অসুবিধা হচ্ছে।

কোদলা নদীর দুপারে কয়েক হাজার নারী পুরুষ উদ্ধার কাজ দেখার জন্য ভীড় জমিয়েছে। অপরদিকে স্বজনদের কান্নায় আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। ইকরামুলের মায়ের একটি আর্তনাত আমার ছেলেকে এনে দেও।

এ ব্যপারে বাহাদুরপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানকে ফোন করলে তিনি বলেন, সন্ধ্যা হয়ে গেছে আমি ঘটনাস্থলে যেয়ে কি করব। নৌকা ম্যানেজ করে দিয়ে কিশোরকে উদ্ধারের সাহায্য করতে পারেন একথা বলার পর তিনি ফোন কেটে দেন।

বেনাপোল পোর্ট থানার এসআই মাসুম বিল্লাহ ঘটনাসস্থল পরিদর্শন করেছেন।

আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 aponnewsbd
error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!!