বরিশাল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ‘দুদকে ঠিকাদারের অভিযোগ | আপন নিউজ

শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১০:৩৫ অপরাহ্ন

বরিশাল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ‘দুদকে ঠিকাদারের অভিযোগ

বরিশাল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ‘দুদকে ঠিকাদারের অভিযোগ

বরিশাল অফিস:

বহুদিন ধরে বরিশাল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ১ এর নিলাম ডাককে পুঁজি করে বড় ধরণের দুর্নীতি ও অনিয়মের আশ্রয় নিচ্ছেন একাধিক কর্মকর্তারা। এমন অভিযোগ করে আজ লিখিতভাবে একজন ঠিকাদার চিঠি দিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশন বরাবর।

৯ সেপ্টেম্বর ইমেইলে এ অভিযোগ দায়ের করেছেন একজন ঠিকাদার ।

এর আগে, ঠিকাদারের অভিযোগের সত্যতা জানতে বরিশাল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি -১ এর নিলাম ডাকের ‘ওপেনিং ডে’ তে সরেজমিনে উপস্থিত হলে সাংবাদিকদের চোখে পড়ে একাধিক কর্মকর্তার অসংলগ্ন আচরণ এবং সূক্ষ্ম অনিয়ম ও সীমাহীন দুর্নীতির চিত্র।

সরেজমিনে দেখা যায়, দরপত্র খোলার ও ঘোষণার দিন ১৩ আগষ্ট দুপুর ১১ টা ৫ মিনিটে সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (প্রশাসন) মানবেন্দু সরকার এর নেতৃত্বে উপস্থিত সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (অর্থ) এএইচএম আশিকুজ্জামান, সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (ওএন্ডএম) সুপ্রিয়া সমদ্দার, দুজন দ্বায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তা এবং প্রায় নয়টি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি ও দরপত্রের মাধ্যমে অংশগ্রহণকারী ব্যক্তির উপস্থিতিতে দরপত্র খোলার আনুষ্ঠানিকতা চলছে। অথচ এরই মধ্যে স্থানীয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘রুফু এন্টারপ্রাইজ ‘ এর প্রতিনিধি মামুন মোল্লা একখানা নতুন চেক সংযুক্ত করতে সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (অর্থ) এএইচএম আতিকুজ্জামানের হাতে দেন। তখন তিনি ( সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (অর্থ) এএইচএম আশিকুজ্জামান) চেকটিতে নিজের ব্যবহৃত কলম দিয়ে চেকে তারিখ বসিয়ে সংযুক্ত করে দেন, যা সম্পূর্ণ অনিয়ম। বিষয়টি উপস্থিত একজন ঠিকাদার আনুষ্ঠানিকতার পরে প্রতিবাদ জানান।

এছাড়াও স্থানীয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘তৈয়্যেবা এন্টারপ্রাইজ’ এর মালিক ঠিকাদার কাশেম অভিযোগ করে বলেন ‘ এই নিলাম বিজ্ঞপ্তির কোন কপি ঢাকা,বরিশাল কোন অফিসেই অনলাইনে আপলোড দেয়া হয়নি। এরপর সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (প্রশাসন) মানবেন্দু সরকার ওপেনিং এর মধ্যেই তার ব্যবহৃত নম্বর থেকে হোয়াটস এ্যাপের মাধ্যমে এবং মোবাইলে কল দিয়ে প্রকাশ্যেই ঢাকার কোন উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তার বদলে তার পদবীর সমমান একজন কর্মকর্তার কাছে জানিয়ে গোপনীয়তা ভঙ্গ করেছেন। ওদিকে ঢাকা থেকে কোন মালপত্রে কি দর দেয়া হয়েছে তাও সম্পূর্ণ জানাতে ব্যর্থ হন তিনি( সহকারী জেনারেল ম্যানেজার -প্রশাসন- মানবেন্দু সরকার ) ।বহুদিন ঘুরেও ঠিকারারা জানতেই পারেনি কে কত দর দিয়ে কাজটি পেয়েছেন।

শুধু তাই নয়,সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (প্রশাসন) মানবেন্দু সরকারকে সরাসরি মৌখিকভাবে অভিযোগটি জানালে তিনি সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (অর্থ) এএইচএম আশিকুজ্জামানের দুর্নীতির বিষয়টি চেপে যেতে বলেন এবং গোপনে তদন্ত করে দেখে জানাবেন বলে আস্বস্ত করেন। আর নিজের তথ্য ফাঁস করে গোপনীয়তা ভঙ্গের কথাও স্বীকার করেন। (সকল প্রমাণাদি প্রতিবেদকের নিকট সংরক্ষিত)
অথচ,মানবেন্দু সরকার ও আশিকুজ্জামান এর যোগসাজশে করা দুর্নীতির মাধ্যমে সরকার হারাচ্ছে পেশাদার ঠিকাদার। অন্যদিকে প্রতিষ্ঠান হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্ত। ‘

সূত্র মতে, স্থানীয় ঠিকাদার মামুন মোল্লার পঞ্চাশ হাজার টাকার চেক সংযুক্ত করতে মোটা অংক হাতিয়ে নিয়েছে ওপেনিং কমিটি। আর ঢাকার এক পার্টিকে বরিশালের তথ্য আগাম ফাঁস করে কাজটিতে বরিশালের রেটের অধিক রেট বসিয়ে কাজ পাইয়ে দেয়ার সুযোগ করে দিয়ে হাতিয়েছে আরও বড় অঙ্ক। আর মানবেন্দু সরকার ও আশিকুজ্জামান এর যোগসাজশে করা দুর্নীতির প্রমাণ হিসেবে ওইদিনের অফিস রুমের সিসি টিভি ক্যামেরা ফুটেজ দেখলেই মিল খুঁজে পাওয়া যাবে। এছাড়াও ওই সংযুক্ত চেকের কপিতে দুই ধরনের হাতের লেখা,কালি এসবই দুর্নীতির প্রমাণ।

এ বিষয়ে দেয়া সাক্ষাৎকারে সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (প্রশাসন) মানবেন্দু সরকার বলেন ‘ আমি জাতীয় ও একটি আঞ্চলিক পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তির কথা জানি।অনলাইনে এটি দেয়া হয়নি। আর আশিকুজ্জামান এ ধরণের কাজ করেছেন বলে দেখিনি।তবে সিসিটিভি ক্যামেরা এই রুমের এই অংশ কাভার করে,সেটা দেখলেই হবে। ঢাকার আমার সমমানের একজন কর্মকর্তার কাছে হোয়াটসঅ্যাপে তথ্য দিয়েছি, আর তারাও দিয়েছে। আর সংযুক্ত চেকের কথা আমি জানিনা বিষয়টি নিয়ে আমি গোপনে দেখে জানাবো, সংবাদ প্রকাশের দরকার নেই।’ অথচ, এ রিপোর্ট লেখার পর্যন্ত কোন পূর্ণ তথ্য দিতে পারেননি তিনি।

দুর্নীতি ও অনিয়মের আরেক প্রধাণ অভিযুক্ত সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (অর্থ) এএইচএম আশিকুজ্জামানকে ফোন বারবার দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved 2022 © aponnewsbd.com

Design By MrHostBD
error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!!