কলাপাড়ায় পুরনো ব্রিজ ধসে পড়েছে; বিকল্প ব্যবস্থাও করা হয়নি | আপন নিউজ

রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:১৩ পূর্বাহ্ন

প্রধান সংবাদ
জমির লোভে ভাড়াটে খুনি দিয়ে আপন খালাকে হ ত‌্যা; দশ মাস পর কুলুলেস হ ত‌্যা রহস‌্য উদঘাটন কাউনিয়ায় ব্র্যাকের উদ্যোগে নিরাপদ অভিবাসন বিষয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত কাউনিয়ায় ডাচ- বাংলা ব্যাংকের গ্রাহক সেবা ও তথ্য হালনাগাদ কলাপাড়ায় পাল্টা সাংবাদিক সম্মেলন করলেন মিজানুর রহমান গলাচিপায় অবৈধ জাল অপসারণে বিশেষ কম্বিং অপারেশন শুরু গলাচিপায় নিখোঁজের ১০ দিনেও সন্ধান মেলেনি স্কুল ছাত্রীর আমতলীতে গ রু চো র গ্রেপ্তার আমতলী পৌরসভা নির্বাচনে প্রতিক বরাদ্দ এক প্রার্থীর বিরুদ্ধে কালো টাকা ছড়ানোর অভিযোগ তুলে এক নারী মেয়র প্রার্থীর প্রার্থীতা প্রত্যাহার কলাপাড়ায় চরমোনাই পীরের মাহফিলে দুই যুবকের বিবাহ সম্পন্ন
কলাপাড়ায় পুরনো ব্রিজ ধসে পড়েছে; বিকল্প ব্যবস্থাও করা হয়নি

কলাপাড়ায় পুরনো ব্রিজ ধসে পড়েছে; বিকল্প ব্যবস্থাও করা হয়নি

বিশেষ প্রতিবেদকঃ 
নির্মানাধীন গার্ডার ব্রিজের কাজ দুই মাস ধরে বন্ধ হয়ে আছে। যোগাযোগের উপায় পুরনো ব্রিজটি ধসে পড়েছে আরও নয় দিন আগে। এখন দুই পাড়ের ১০ গ্রামের হাজার হাজার মানুষের যোগাযোগে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে আছে। তবে খালি মানুষ চলাচল করছে একটি স্টিল বডির ট্রলার নদীর মাঝখানে আড়াআড়ি করে বেধে রেখে। কলাপাড়া উপজেলার মিঠাগঞ্জ ইউনিয়নের পূর্বমধুখালী আর পশ্চিম মধুখালী পারাপারের ব্রিজ ধসে নদীতে পড়ায় আশপাশের আরও দশ গ্রামের মানুষ এখন চরম দূর্ভোগে পড়েছে। সবচেয়ে বেশি বিপদে পড়েছে শিশু ও বয়োবৃদ্ধ মানুষ। স্কুলগামী শত শত শিশুরা ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে এ পথে। নিত্যকার এ দূর্ভোগ নিয়ে ১০টি গ্রামের মানুষের দুশ্চিন্তার শেষ নেই। কারণ এলজিডির নির্মাণাধীন নতুন গার্ডার ব্রিজের কাজ দুই মাস ধরে বন্ধ রয়েছে। স্থানীয়রা জানালেন, দুই পাড়ের এ্যাবারমেন্ট ওয়াল করে এখন দুই মাস ধরে কাজ বন্ধ রয়েছে। গত ১১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় একটি বালুবাহী ট্রলিসহ পুরনো জীর্ণদশার সেতুটি ধসে নদীতে পড়ে যায়। সেতুটি ধসে মারা যায় কৃষক আনেচ প্যাদা। আহত হয় আরও চারজন। এরপর থেকে পূর্ব মধূখালী, পশ্চিম মধুখালী, মেলাপাড়া, আজিমদ্দিন, তেগাছিয়া, গোলবুনিয়া, চরপাড়া, সাফাখালী, আরামগঞ্জ,  ইসলামপুর গ্রামের মানুষ যোগাযোগে চরম দূর্ভোগে পড়েছে। সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছে স্কুলগামী শিক্ষার্থীরা। তাঁদের প্রতিদিন চরম ঝুঁকি নিয়ে সকাল-বিকাল চলাচল করতে হচ্ছে। অভিভাবকরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন।

আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved 2022 © aponnewsbd.com

Design By JPHostBD
error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!!